• রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১১:১৭ পূর্বাহ্ন
  • English Version
Notice :
***শর্ত সাপেক্ষে সাংবাদিক নিয়োগ দিচ্ছে সংবাদ২৪**আগ্রহীরা সিভি পাঠান এই ইমেইলেঃinfo@shangbad24.com

জাহাজ আসছে, তবুও কমছে না পেঁয়াজের দাম

সংবাদ২৪ ডেস্ক
আপডেট মঙ্গলবার, ৬ অক্টোবর, ২০২০

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ বোঝাই হয়ে জাহাজ ভিড়ছে চট্টগ্রাম বন্দরে, তবুও এর বিন্দুমাত্র প্রভাব পড়ছে না খুচরা বাজারে। কমছে না পেঁয়াজের তেজ। আমদানি পর্যায়ে পেঁয়াজের মূল্য কেজি ৯০ থেকে ৭৫ টাকা বলে দাবি আমদানিকারকদের। তবে খুচরা পর্যায়ে গিয়ে এসব পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি দরে। মূলত খুচরা বাজারে ৯০ টাকার নিচে পেঁয়াজ মিলছে না।

এদিকে চট্টগ্রাম বন্দর অভিমুখে পেঁয়াজ বোঝাই জাহাজে সারি রয়েছে গভীর সমুদ্রে। সর্বশেষ মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) পর্যন্ত এক হাজার ৬ মেট্রিকটন পেঁয়াজ খালাস করতে ছাড়পত্র দিয়েছে বন্দরের উদ্ভিদ সংঘ নিরোধ কেন্দ্র।

চট্টগ্রাম বন্দর সচিব ওমর ফারুক জানান, ভারতের বিকল্প বিভিন্ন দেশ থেকে চট্টগ্রাম বন্দর অভিমুখে পেঁয়াজ বোঝাই জাহাজ আসতে শুরু করেছে। গত এক সপ্তাহে পাকিস্তান, মিয়ানমার থেকে ৪ জাহাজ পেঁয়াজ এসে পৌঁছেছে বন্দরে। এসব পেঁয়াজের খালাস কার্যক্রম চলছে দ্রুত গতিতে। এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি পেঁয়াজ বোঝাই জাহাজ বন্দর অভিমুখে রয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দর উদ্ভিদ সংঘ নিরোধ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ড. মো. আসাদুজ্জামান বুলবুল জানান, পাকিস্তান এবং মিয়ানমার থেকে আসা ১ হাজার ৬ মেট্রিক টন পেঁয়াজ খালাসের অনুমতি দেওয়া হয়েছে মঙ্গলবার পর্যন্ত। এসব পেঁয়াজের মধ্যে ৫০০ টনের বেশি পেঁয়াজ খালাস হয়ে খাতুনগঞ্জসহ ঢাকা, চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীদের গুদামে চলে গেছে। বাকি পেঁয়াজ আজ-কালের মধ্যেই খালাস শেষ হবে। এছাড়া মিশর, তুরস্ক, চীন থেকেও আরও পেঁয়াজ বোঝাই জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দর অভিমুখে রয়েছে।

ডা. আসাদুজ্জামান বলেন, এখন পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে ১ লাখ ৬১ হাজার মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানির জন্য বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এসব পেঁয়াজও দ্রুত সময়ের মধ্যে দেশে এসে পৌঁছাবে।

এদিকে ব্যাপক হারে পেঁয়াজ আমদানি হলেও খুচরা পর্যায়ে এর দাম কমছেই না। বাজারে ৯০ টাকা কেজির নিচে পেঁয়াজ মিলছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পেঁয়াজ আমদানিকারক বলেছেন, প্রতি কেজি পেঁয়াজ আমদানিতে খরচ হচ্ছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকা। কমিশন ভিত্তিতে আড়ৎদারদের কাছে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। খুচরা পর্যায়ে গিয়ে তা ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা মামুন সওদাগর বলেন, মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে আমদানিকরা প্রতিকেজি পেঁয়াজ পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৮৫ টাকা। যা খুচরা বাজারে ৯০ টাকা। মিশর, তুরস্ক ও চীন থেকে পেঁয়াজের জাহাজ এসে পৌঁছালে দাম অনেক কমে যাবে বলে এ ব্যবসায়ী মন্তব্য করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ