• বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০২:২১ পূর্বাহ্ন
  • English Version
Notice :
***শর্ত সাপেক্ষে সাংবাদিক নিয়োগ দিচ্ছে সংবাদ২৪**আগ্রহীরা সিভি পাঠান এই ইমেইলেঃinfo@shangbad24.com

পৃথক রাজ্যের দাবিতে ত্রিপুরায় বনধ

সংবাদ২৪ ডেস্ক
আপডেট শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০

সকাল থেকে পাহাড়ি জনপদে বনধ সমর্থক আদিবাসীরা মিছিল ও পিকেটিংয়ে ব্যস্ত। তিপ্রাল্যান্ডের সমর্থনে শ্লোগান দিচ্ছেন বনধ সমর্থকরা।

পৃথক রাজ্য তিপ্রাল্যান্ডের দাবিতে বনধ পালিত হচ্ছে ত্রিপুরার বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে। বনধের ডাক দিয়েছে বিজেপির শরিক দল ‘ইন্ডিজেনাস পিপলস ফ্রন্ট অফ ত্রিপুরা’ (আইপিএফটি)।


বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ত্রিপুরা আদিবাসী অধ্যুষিত স্বশাসিত জেলা পরিষদ বা টিটিএএডিসি এলাকায় শুরু হয়েছে ২৪ ঘণ্টার বনধ।

তবে রাজ্যভাগের দাবির বিরোধিতা করেছে কংগ্রেস ও সিপিএম। বিজেপি স্পষ্ট করে কিছু বলেনি।

সকাল থেকে পাহাড়ি জনপদে বনধ সমর্থক আদিবাসীরা মিছিল ও পিকেটিংয়ে ব্যস্ত। তিপ্রাল্যান্ডের সমর্থনে শ্লোগান দিচ্ছেন বনধ সমর্থকরা। স্বশাসিত জেলা পরিষদের বদলে তারা চান পৃথক রাজ্য।

বনধকে ঘিরে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে এলাকায়। নেয়া হয়েছে কড়া পুলিশি ব্যবস্থা।

 

আইপিএফটি নেতা মঙ্গল দেববর্মা বলেন, ‘তিপ্রাল্যান্ড আমাদের ন্যায্য দাবি; আমাদের অধিকার। দাবি আদায়ে ত্রিপুরার আদিবাসীরা লড়াই চালিয়ে যাবে।’

আরো পড়ুনঃ রাস্তা আটকে বিক্ষোভ নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

অন্যদিকে সিপিএম এই দাবির কড়া বিরোধিতা করেছে। সিপিএম নেতা ও সাবেক মন্ত্রী পবিত্র কর বলেন, ‘কোনো অবস্থাতেই ত্রিপুরাকে টুকরো করার সিদ্ধান্ত জনগণ মানবে না।’

বিজেপির প্রশ্রয়েই ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী’রা মাথাচাড়া দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রদেশ কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি গোপাল রায় বলেন, ‘রাজ্যভাগের চক্রান্তের পিছনে রয়েছে বিজেপির ইন্ধন। আইপিএফটির ওপর ভর করেই ক্ষমতায় আসে বিজেপি। তাই দায়টা বিজেপিরই।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ