• সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১০:২৫ অপরাহ্ন
  • English Version
Notice :
***শর্ত সাপেক্ষে সাংবাদিক নিয়োগ দিচ্ছে সংবাদ২৪**আগ্রহীরা সিভি পাঠান এই ইমেইলেঃinfo@shangbad24.com

কটিয়াদীতে প্রতিবন্ধী শামসু নিখোঁজের ১৫ মাস পর সন্ধান পেল ভৈরবে

মিয়া মোহাম্মদ ছিদ্দিক,কটিয়াদী(কিশোরগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ
আপডেট মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০

কিশোরঞ্জের কটিয়াদীতে শামসু মিয়া (৫৫) নামে এক শারীরিক ও বাক প্রতিবন্ধী নিখোঁজ হওয়ার ১৫ মাস পর গত রোবরার দিন পাওয়া গেল ভৈরবে ।

 

শামসু মিয়া উপজেলার কটিয়াদী পৌর সভার পূর্বপাড়া মহল্লার মৃত শুক্কুর আলীর পুত্র।

 

প্রতিবিন্ধ শামসু বাড়িতে আসলে তার স্ত্রী গায়ে থাকা ময়লা কাপড় খুলে গোসল করানো সময় দেখতে পাই তার শরীরে সুই এর দাগের মত শতশত চিহৃ।পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসি ধারণা তাকে রাস্তার পাশ থেকে উঠিয়ে নিয়ে ইনজেকশান দিয়ে ও ঔষুধ খাইয়ে অজ্ঞান করে ভিক্ষা করানোর কাজে ব্যবহার করা হয়েছে।

 

শামসু মিয়ার স্ত্রী শাহানা বেগম জানান ৩ বছর পূর্বে আমার স্বামী প্যারালাইসিসে আক্রান্ত হয়ে কথা বলা বন্ধ এবং এক হাত ও এক পা আংশিক অবস হয়ে যায়। গত ১৫ মাস পূর্বে তিনি কিশোরগঞ্জ-ভৈরর মহাসড়কের সাথে চরিয়াকোনা গ্রামে বোনের বাড়িতে যায়। ঐ দিন তিনি আর বাড়িতে ফিরে আসেনি। আমরা তার সন্ধান পেতে কটিয়াদী থানায় জিডি করে বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করাসহ খোঁজাখুজি করি। কোথাও সন্ধান না পেয়ে আমরা তার আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম।

 

এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রফিক মিয়া আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসেন। আমার প্রতিবন্ধী স্বামীর চিকিৎসা ও ছেলে মেয়েসহ ৭ জনের মুখে এক বেলা খাবারের ব্যবস্থা আমাদের নেই। আমার দেবর নজরুল সকলের খাবারের জন্য সহযোগীতা করছে। এভাবে আর কতদিন চলবে। প্রতিবন্ধী স্বামীর চিকিৎসা ও ছেলে মেয়েসহ ৭ জনের মুখে এক বেলা খাবারের ব্যবস্থা করতে সরকার ও বিত্তবানদের কাছে সহযোগীতা চাই।

 

ফেকামারা গ্রামের রফিক জানান,আমি ভৈরবে চালাই।গত রোববার প্রতিবন্ধি শামসুকে রাস্তার পাশে পড়ে থাকতে দেখি এবং আমি চিনতে পেরে কাছে যাই। এ সময় আমাকে দেখে তিনি হাওমাও করে কাঁদতে থাকেন। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে আমি বাড়িতে নিয়ে আসি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ