• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৪০ অপরাহ্ন
  • English Version
Notice :
***শর্ত সাপেক্ষে সাংবাদিক নিয়োগ দিচ্ছে সংবাদ২৪**আগ্রহীরা সিভি পাঠান এই ইমেইলেঃinfo@shangbad24.com

মেয়ে স্বামী তালাক করায় এতিম সন্তান নিয়ে বাড়ি ছাড়া গোলাপি

খালিদ হাসান
আপডেট বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন, ২০২০

১২ বছর আগে স্বামী মারা যায় গোলাপির। শিশু বয়সি ২ ছেলে ও ১ মেয়েকে নিয়ে মানুষের বাড়ি বাড়ি কাজ করে অনেক কষ্টে জীবণ যাপন করে আসছিলেন তিনি।

৭ বছর আগে মেয়ে শারমিন কে বিয়ে দেন এক ট্রাক চালকের সাথে। সংসার জীবণে তাদের ঘর আলোকিত করে জন্ম নেয় ১ সন্তান। কিন্তু বিধি বাম। এতিম শারমিনের ভাগ্যে স্বামীর সংসার সুখের হয়নি। প্রতিনিয়ত মাদকাসক্ত স্বামীর নির্যাতনের মুখে দু চোখে হতাসা তারা করে ফিরে শারমিনের।

অবশেষে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সবার অজান্তে স্বামীকে তালাক দেয় সে।

এদিকে মেয়ে তার স্বামীকে তালাক দিয়েছে এমন সংবাদ হঠাৎ জানতে পেরে আতকে ওঠে গোলাপি। কিন্তু তালাকের এ কথা জানতে পেরে ভয়াবহ রুপ ধারণ করে গোলাপির দেবর রাজু ও শাশুড়ি জরিনা। ভাতিজি শারমিন স্বামী তালাক করলো কেনো এমন অভিযোগে গোলাপিকে ঐ মেয়ে ও আরও এক সন্তান সহ বাড়ি থেকে টেনে হিচড়ে বেড় করে দিয়ে ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয় তারা।

এমন হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটেছে বগুড়ার শিবগঞ্জের দেউলী ইউপির রহবল পশ্চিম পাড়া গ্রামে। ঘটনার পর ঐ অসহায় বিধবা ২ মাস যাবৎ ছেলে মেয়ে নিয়ে ভেঁসে বেড়াচ্ছে। কখনও মায়ের বাড়ি আবার কখনও বোনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে বেঁচে আছে তারা।

স্থানীয় ভাবে মিমাংসার অনেক চেষ্টার পরেও কোন সুরাহা না হলে গত ১৫/০৬/২০২০ ইং তারিখে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ দেয় ওই বিধবা মহিলা।
এ বিষয়ে জানতে বিধবা গোলাপির সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান, আমার দেবর ও শ্বাশুড়ি ২ মাস আগে বাড়ি থেকে বেড় করে দিয়েছে আমাকে।

এতিম দুই সন্তান নিয়ে আমি বেশ কয়েকবার বাড়িতে ওঠার চেষ্টা করেছি । কিন্তু যতোবারই গিয়েছি ততোবারই আমাকে বাড়িতে উঠতে দেয়া হয়নি। দেবর ও শ^াশুড়ি বলে তোর মেয়েকে ঐ ছেলের সাথে সংসার করালে এই বাড়িতে যায়গা হবে। তা ছাড়া তোদের বাড়িতে উঠতে দেয়া হবেনা।

এসময় তিনি বলেন, আমার ১৬ বছর বয়সি সন্তান রব্বানীকেও ভুল বুঝিয়েছে তারা। এখন ছোট ছেলে সোহান আর মেয়ে শারমিনকে নিয়ে আমি আশ্রয়হীণ অবস্থায় আছি।

ঘটনার বিস্তারিত জানতে বিধবার বাড়িতে গেলে তার দেবর রাজু ও শাশুড়ি জড়িনা জানান, শারমিন তার মা গোলাপির যুক্তিতে ঐ ছেলেকে তালাক দিয়েছে। ঐ ছেলের সাথে আবার যদি সংসার করে তাহলে সব ঠিক হবে।

এ বিষয়ে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ সনাতন চন্দ্র সরকার জানান, আমি বিধবা মহিলার সাথে কথা বলেছি। তার সাথে ঘটে যাওয়া এমন ঘটনা অমানবিক। অভিযোগটির তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।#


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ